পলওয়েল পার্ক | ভ্রমণকাল

পলওয়েল পার্ক

polwel-park-rangamati
জেলা পুলিশ, রাঙ্গামাটি’র তত্ত্বাবধানে কাপ্তাই লেকের কোল ঘেঁসে তৈরি পলওয়েল পার্ক। অভিনব নির্মাণশৈলী ও নান্দ্যনিকতার ছোঁয়ায় ইতিমধ্যেই রাঙ্গামাটির অন্যতম সেরা বিনোদন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। মেরি গো রাউন্ড, হানি সুইং, মিনি ট্রেন, প্যাডেল বোট ইত্যাদি বিভিন্ন আকর্ষণীয় রাইড ছাড়াও পলওয়েল পার্কে আছে ভুতুড়ে পাহাড়ের গুহা, পাহাড়ী কৃত্রিম ঝর্ণা ও কলসি ঝর্ণা, ক্রোকোডাইল ব্রিজ, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঢেঁকি শিল্প, লেকভিউ পয়েন্ট, হিলভিউ পয়েন্ট, লাভ লক পয়েন্ট, মিনি চিড়িয়াখানা, এক্যুরিয়াম, ফিশিং পিয়ার, ক্যাফেটেরিয়া, সুইমিংপুল, কার পার্কিং এবং পলওয়েল কটেজ।

এছাড়াও এই পার্কে পিকনিকসহ বিভিন্ন ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজনের সুযোগ রয়েছে। নৈসর্গিক প্রাকৃতিক পরিবেশে সময় কাটাতে ও চিত্তবিনোদনের জন্য প্রতিদিন অসংখ্য দর্শনার্থীর পদচারণার পলওয়েল পার্ক মুখর হয়ে উঠে।

পলওয়েল পার্ক প্রবেশ ফি

রাঙ্গামাটি’র পলওয়েল পার্কে জনপ্রতি প্রবেশ ফি ৩০ টাকা, বিভিন্ন রাইডের ফি ৩০ থেকে ৪০ টাকা এবং সুইমিংপুলের প্রবেশ ফি ২০০ টাকা। পলওয়েল পার্কের কটেজ ভাড়া নিতে ৮,০০০ টাকা খরচ করতে হয়। কটেজ বুকিংয়ের সাথে রয়েছে সকালে নাস্তা, ফ্রি সুইমিংপুল ব্যবহারের সুবিধা, ফ্রি এন্ট্রি, কার পার্কিং, ওয়াইফাই এবং ২৪ ঘন্টা নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

পলওয়েল পার্ক কিভাবে যাবেন

প্রতিদিন ঢাকার ফকিরাপুল ও সায়দাবাদ এলাকা থেকে রাঙ্গামাটির উদ্দেশ্যে অসংখ্য বাস ছেড়ে যায়। ঢাকা টু রাঙ্গামাটি শ্যামলী বাসের প্রতি সীটের ভাড়া ৬২০ টাকা। বিআরটিসি এসি বাসের ভাড়া ৭০০ টাকা। আর অন্যান্য নন-এসি বাসের ভাড়া ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা (ভাড়া পরিবর্তন হতে পারে)। এছাড়াও চট্টগ্রাম শহরের অক্সিজেন মোড় থেকে রাঙ্গামাটিগামী বিভিন্ন পরিবহণের বাস পাওয়া যায়। ২৫০ টাকার মধ্যে চট্টগ্রাম হতে রাঙ্গামাটি ডাইরেক্ট বাস পেয়ে যাবেন। রাঙ্গামাটির রিজার্ভ বাজার থেকে মাত্র ১.৫ কিলোমিটার দূরে ডিসি বাংলো রোডে অবস্থিত পলওয়েল পার্কে যেতে ৫০ টাকা সিএনজি ভাড়া লাগে। আর বনরূপা থেকে যেতে সিএনজি ভাড়া লাগে ১০০ টাকা।

রাঙ্গামাটিতে থাকার ব্যবস্থা

রাত্রে অবস্থানের জন্য পলওয়েল পার্কে রয়েছে চমৎকার কটেজ সুবিধা। আর যদি অন্য কোথাও থাকতে চান রাঙ্গামাটি শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এবং রিজার্ভ বাজার এলাকায় বেশকিছু বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল পাবেন। রাঙ্গামাটির আবাসিক হোটেলের মধ্যে হোটেল গ্রিন ক্যাসেল, পর্যটন মোটেল, রংধনু গেস্ট হাউজ, হোটেল সুফিয়া, হোটেল আল-মোবা ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

খাবার ব্যবস্থা

পলওয়েল পার্কে ক্যাফে ও রেস্টুরেন্ট ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া রাঙ্গামাটিতে বিভিন্ন মানের খাবারের হোটেল ও রেস্টুরেন্ট পাবেন। সাধ্যের সাথে মিলিয়ে যেকোন রেস্টুরেন্টে প্রতিবেলার খাবারের সাথে সাথে স্থানীয় বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী খাবারও চেখে দেখতে পারেন।

রাঙ্গামাটির আরো দর্শনীয় স্থান

রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত অন্য যে সকল দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখতে পারেন: শুভলং ঝর্ণা, কাপ্তাই লেক, শেখ রাসেল এভিয়ারী এন্ড ইকো পার্ক, উপজাতীয় জাদুঘর, ঝুম রেস্তোরা, টুকটুক ইকো ভিলেজ, চিৎমরম গ্রাম ও টাওয়ার, যমচুক, রাইক্ষ্যং পুকুর, নির্বাণপুর বন ভাবনা কেন্দ্র, রাজবন বিহার, ঐতিহ্যবাহী চাকমা রাজবাড়ি, পেদা টিং টিং, উপজাতীয় টেক্সটাইল মার্কেট, নৌ-বাহিনীর পিকনিক স্পট, রাজস্থলী ঝুলন্ত সেতু, ফুরমোন পাহাড়, সাজেক ভ্যালি, আর্যপুর ধর্মোজ্জ্বল বনবিহার, ডলুছড়ি জেতবন বিহার, বেতবুনিয়া ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র, কাট্টলী বিল ও ন-কাবা ছড়া ঝর্না ইত্যাদি।

পলওয়েল পার্ক যোগাযোগের ঠিকানা

মোবাইল: 01845-875497
ফেইসবুক: www.fb.com/PolwelPark
ওয়েবসাইট:https://www.polwelpark.com/

আরো দেখুন

রাঙ্গামাটি ঝুলন্ত ব্রিজ, কাপ্তাই লেক, শুভলং ঝর্ণা
দৃষ্টি আকর্ষণ: আমাদের পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের পরিচয় বহন করে এবং এইসব পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন। আর ভ্রমনে গেলে কোথাও ময়লা ফেলবেন না। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
 আমাদের টিম সবসময় চেষ্টা করে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা বানান ভুল হয়ে থাকে বা ভ্রমণ স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে অথবা আপনার কোন ভ্রমণ গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করতে চান তাহলে Comments করে জানান অথবা আমাদের কে ''আপনার মতামত'' পেজ থেকে মেইল করুন।