শিশু মেলা | ভ্রমণকাল

শিশু মেলা

shyamoli-shishu-mela, শ্যামলী শিশু মেলা, শিশু মেলা, ঢাকা শিশু মেলা
রাজধানীর শ্যামলীতে প্রথম বেসরকারীভাবে নির্মিত শিশুদের জন্য পার্ক ‘শিশুমেলা’। তবে আগের নামে পরিবর্তন করে শিশুদের নতুন এ বিনোদন কেন্দ্রটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ডিএনসিসি ওয়ান্ডারল্যান্ড’। শ্যামলীর এই শিশু মেলা, ঢাকাবাসী শিশুদের জন্য অন্যতম এক বিনোদন কেন্দ্র।

১৯৮৫ সালের ১৫ অক্টোবর শ্যামলীর শিশু হাসপাতালের পাশে ১ দশমিক ৪০ একর ভূমি গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে শিশুপার্ক হিসেবে পরিচালনার জন্য ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরবর্তীতে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন গুলশান-২-এ অবস্থিত একটি পার্ক ও শ্যামলীর একটি পার্কে নিজ খরচে আধুনিক খেলার যন্ত্রাংশ স্থাপন করার জন্য ইজারা দেয়া হয়। সেই থেকে যাত্রা শুরু হয় শ্যামলী শিশু মেলার।

শিশু মেলার অবস্থান

রাজধানী ঢাকার শ্যামলীর পাশেই, শিশু হাসপাতালের পশ্চিম দিকে মেইন রোডের সাথেই শিশু মেলা বা ডিএনসিসি ওয়ান্ডারল্যান্ড' এর অবস্থান। যা শিশুদের জন্য শিশু মেলা বা আনন্দ রাজ্য হিসেবে পরিচিত। ঢাকার যে কোন জায়গা থেকে বাসে চরে এই শ্যামলী শিশু মেলায় আসা যায়।

শিশু মেলা সময়সূচী

শ্যামলী শিশু মেলা সপ্তাহের প্রতি দিনই খোলা থাকে।
গ্রীষ্মকালীন সময়সূচী: ১লা মার্চ থেকে ৩১ অক্টোবর, সকাল ১০টা থেকে রাত্র ৯.৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে। তবে শীতকালে সময়ের কিছুটা পরিবর্তন হয়। ১লা নভেম্বর থেকে ২১ ফ্রেরুয়ারী সকাল ১০টা থেকে রাত্র ৮.৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে।

শিশু মেলা টিকেট মূল্য

শিশু মেলায় প্রবেশের জন্য টিকেট মূল্য জন প্রতি ৬০ টাকা। ২ বছরের উপরের সকল শিশুদের প্রবেশের জন্য অবশ্যই টিকেট নিতে হবে।

শিশু মেলায় প্রবেশের পর প্রতিটি রাইডস্ এ উঠতে বা চড়তে আলাদা আলাদা টিকেট সংগ্রহ করতে হবে। এখানে মোট ২০টি রাইডস আছে। প্রতিটি রাইডস এ উঠতে হবে আপনাকে ৫০ টাকা করে টিকেট নিতে হবে। সব রাইডস্ এ বয়স্ক বা শিশুদের পাশাপাশি উঠতে পারবেন না। তবে কিছু রাইডস্ এ উঠতে পারবেন।

শিশু মেলায় যে কয়টি রাইডস্ রয়েছে -
১। কিডিরাইডস্ গেমস্
২। মেরী গো রাউন্ড
৩। চুক চুক ট্রেন
৪। হ্যানি সুইং
৫। সোয়ান অ্যাডভেনচার
৬। প্যারাট্রুপার
৭। মিনি ট্রেন
৮। টোয়িস্ট
৯। ব্যাটারীব কার
১০। পেনডুলাম
১১। ভিডিও গেমস্
১২। হেলিকপ্টার কর্ণার
১৩। বাউন্সী ক্যাসল
১৪। ভাইকিং বোট
১৫। ড্রাগন রোলার কোষ্টার
১৬। স্পেইস শ্যাটল
১৭। ওয়ান্ডার হুইল
১৮। থ্রী-ডি গ্যালারী
১৯। থ্রী-ডি অ্যাডভেঞ্চার
২০। বাম্পার কার

শ্যামলী শিশু মেলা কিভাবে যাবেন

ঢাকার যে কোন জায়গা থেকে আপনি শ্যামলী যাবার বেশ কয়েকটি লোকাল বাস পাবেন।
এগুলোর মধ্য রয়েছে-

সুপার বাস – মতিঝিল থেকে নন্দন পার্ক
রুট: গুলিস্তান শাহবাগ ফার্মগেট শ্যামলী গাবতলী সাভার নবীনগর।

লাব্বায়েক পরিবহন-
রুট: যাত্রাবাড়ী থেকে সায়দাবাদ, মুগদা, খিলগাঁও, মালিবাগ, মগবাজার, কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট, আসাদগেট, শ্যামলী, গাবতলী হয়ে সাভার পর্যন্ত যাতায়াত করে।

বাহন পরিবহন-
রুট: মিরপুর-১৪ মিরপুর-১৩ মিরপুর-১০ মিরপুর-২ মিরপুর-১ টেকনিক্যাল কল্যাণপুর শ্যামলী কলেজগেট আসাদগেট কলাবাগান সিটিকলেজ সাইন্সল্যাব শাহবাগ প্রেসক্লাব পল্টন মতিঝিল শাপলা চত্তর আরামবাগ কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন

তেতুলিয়া পরিবহন-
রুট: শিয়া মসজিদ শ্যামলি আগারগাও মিরপুর ১০ কালশী বিশ্বরোড এয়ারপোর্ট উত্তরা আব্দুল্লাহপুর।

পল্লবী লোকাল সার্ভিস
রুট: আসাদ গেট শ্যামলী কল্যাণপুর টেকনিক্যাল মিরপুর ১ মিরপুর ২ মিরপুর ৬ চলন্তিকা মোড় মিরপুর ৭ মিরপুর ১১ মিরপুর ১২।

বৈশাখী পরিবহন
রুট: সাভার গাবতলী কল্যাণপুর শ্যামলী আগারগাঁও নতুন রাস্তা মহাখালী গুলশান ১ বাড্ডা লিঙ্ক রোড নতুন বাজার।

এগুলোর যে কোনটিতে চরে আপনি শ্যামলী বাসস্ট্যান্ডে নেমে যাবেন, বাসস্ট্যান্ডে নামলেই শ্যমলী শিশু মেলা দেখতে পাবেন।

কোথায় খাবেন

শিশু মেলার ভিতরে খাবারের প্রায় ১২টির অধিক দোকান রয়েছে, এছাড়াও শিশু হাসপাতালের আশে পাশে কয়েকটি হোটেল রয়েছে সেখান থেকে দুপুরের খাবার সেরে নিতে পারেন, শিশু মেলার ভিতরে খেতে চাইলে অবশ্য দাম যেনে নিবেন।

শিশুর নিরাপত্তা

বয়স ভেদে শিশুদের রাইডস্ এ উঠানো উচিত। কম বয়সের শিশুদের কিছু কিছু রাইডস্ না উঠানোই ভালো হবে। শিশুদের সাথে যারা যাবেন তারা শিশুদের প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখুন, যে রাইডস্ এ উঠতে শিশু ভয় পায় এমন রাইডস্ উঠাবেন না।

আরো দেখুন

বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা
নন্দন পার্ক
ফ্যান্টাসি কিংডম
দৃষ্টি আকর্ষণ: আমাদের পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের পরিচয় বহন করে এবং এইসব পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন। আর ভ্রমনে গেলে কোথাও ময়লা ফেলবেন না। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।