কাপ্তাই লেক | ভ্রমণকাল

কাপ্তাই লেক

kaptai lake; কাপ্তাই লেক; Kaptai lake tour; Kaptai lake history; Area of kaptai lak; Kaptai hotal;
কাপ্তাই লেক বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের রাঙামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলার একটি কৃত্রিম লেক। আর কাপ্তাই উপজেলা অনন্য পাহাড়, লেকের অথৈই পানি এবং চোখ জুড়ানো সবুজের সমারোহে। ১ হাজার ৭২২ বর্গ কিলোমিটার বিস্তৃত এই কাপ্তাই লেক৷ বর্ষার ভরা যৌবনে চারপাশে আরো ৮'শ বর্গ কিলোমিটার এলাকা ডুবে যেত পানিতে এক সময়৷ তবে এই দৃশ্য এখন আর নেই৷ ধনুকের মত বাঁকা ৬৭০ মিটার দীর্ঘ কাপ্তাই বাঁধের রয়েছে ১৬টি স্লুইস গেট৷ এই কৃত্রিম লেক দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে আয়তনে সবচেয়ে বড়।কাপ্তাই লেককে ঘিরেই মূলত রাঙামাটি জেলার পর্যটন শিল্প গড়ে উঠেছে। এখানে চোখে পরবে ছোট বড় পাহাড়, আকা বাকা পাহাড়ি রাস্তা, ঝর্ণা আর জলের সাথে সবুজের মিতালী। একদিকে যেমন পাহাড়ে রয়েছে বিভন্ন উদ্ভিদ ও প্রাণীর সম্ভার তেমনি লেকের পানিতে রয়েছে বহু প্রজাতির মাঝ ও অফুরন্ত জীব বৈচিত্র। ই লেকের উপর রয়েছে বিখ্যাত ঝুলন্ত ব্রীজ। লেকের দুই ধারই পাহাড়-টিলা দিয়ে ঘেরা। ট্রলার ভাড়া করে লেকে ভ্রমণ করা যায়। ট্রলারে করে যাওয়া যায় শুভলং ছোট ও শুভলং বড় ঝর্ণাতে। লেকের পাড়ে রয়েছে নতুন চাকমা রাজবাড়ি ও বৌদ্ধ মন্দির। পুরাতন চাকমা রাজবাড়ি কাপ্তাই বাঁধ নির্মানের সময় লেকে পানিতে তলিয়ে যায়। রাজবন বিহার বাংলাদেশে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের বৃহত্তম বিহার রাঙামাটি শহরের অদূরেই অবস্থিত, যা পূণার্থী এবং দর্শনার্থীদের অন্যতম আর্কষনীয় স্থান। লেকের মধ্যেই ছোট্ট একটি দ্বীপের মতো পাহাড়৷ সেখানেই আছে একটি খাবার হোটেল৷ নাম 'পেঁদা টিংটিং'৷ চাকমা ভাষায় দেওয়া নাম৷ বাংলায় যার অর্থ দাঁড়ায় পেটভর্তি করে খাওয়া৷

কাপ্তাই লেক এর আশেপাশে দর্শনীয় স্থান

এছাড়াও রাঙ্গামাটি জেলায় আরো যে সমস্ত  আকর্ষনীয় ও দর্শনীয় স্থান রয়েছে: 
▢ ইকো পার্ক
▢ উপজাতীয় জাদুঘর
▢ ঝুম রেস্তোরা
▢ টুকটুক ইকো ভিলেজ
▢ যমচুক
▢ নির্বাণপুর বন ভাবনা কেন্দ্র
▢ রাজবন বিহার
▢ ঐতিহ্যবাহী চাকমা রাজবাড়ি
▢ পেদা টিং টিং
▢ উপজাতীয় টেক্সটাইল মার্কেট
▢ ফুরমোন পাহাড়
▢ সাজেক ভ্যালি

কাপ্তাই লেক কিভাবে যাবেন

ঢাকার ফকিরাপুল মোড় ও সায়দাবাদ রাঙ্গামাটিগামী অসংখ্যা বাস কাউন্টার রয়েছে।এই বাস গুলো সাধারণত সকার ৮টা হতে ৯টা এবং রাত ৮.৩০ হতে ১১টার মধ্যে ঢাকা থেকে রাঙ্গামাটির উদ্দেশ্য ছেড়ে যায়। ঢাকার রাঙ্গামাটি শ্যামলীর এসি বাসের ভাড়া ৯০০ টাকা, বিআরটিসি এসি বাসের ভাড়া ৭০০ টাকা। এছাড়াও সকল নন-এসি বাসের ভাড়া ৬২০ থেকে ৭০০ টাকার মধ্যে।
বাস গুলো আপনাকে নামিয়ে দিবে রাঙ্গামাটি শহীদ মিনারের আছে। সেখানে পযটকদের জন্য ট্রলার রিজাভ করার জন্য একটা ঘাট রয়েছে। ঘাট থেকে ট্রলার রিজাভ করে সারাদিন ঘুরে বেড়াতে পারবেন কাপ্তাই লেকে। কাপ্তাই লেক এর আশে পাশে বেশ কতগুলো দর্শনীয় স্থান চাইলে সে ট্রলারে চলে সেগুলোও দেখে আসতে পারেন।

ভ্রমনকালে পরামর্শ

▢ এক সাথে বা গ্রুরুপে গেলে খরচ কম পরবে।
অফসিজন বা ছুটির দিন ব্যাতিত গেলে খরচ কম পরবে।
ট্রলার/বোট রির্জাভ করার সময় কি দেখবেন কোথায় যাবেন ভালো মত বলে নিবেন।
রির্জাভ করার সময় ঠিকমত দরদাম করে নিন।
ট্রলার/বোট সারাদিনের জন্যে ভাড়া করুন তাহলে কাছা কাছি অনেক গুলো স্পট ঘুরে দেখতে পারবেন।
ঝুলন্ত ব্রিজ, পলওয়েল পার্ক, কাপ্তাই লেক, শুভলং ছোট ও বড় ঝর্ণা এই স্পট গুলা খুবই কাছাকাছি।
লেকের কাছাকাছি কোন হোটেল ঠিক করুন।
কাপ্তাই লেকে নামার আগে/ সাতার না জানলে লাইফ জ্যাকেট রাখুন।
একদিনেই কমন স্পট গুলো ঘুরে বেড়ানো যায়।
পরিবেশে ও জীববৈচিত্রের ক্ষতি হয় দয়া করে এমন কিছু করবেন না।
স্থানীয় মানুষদের সাথে ভালো আচরন করুন।

দৃষ্টি আকর্ষণ: আমাদের পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের পরিচয় বহন করে এবং এইসব পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন। আর ভ্রমনে গেলে কোথাও ময়লা ফেলবেন না। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
 আমাদের টিম সবসময় চেষ্টা করে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা বানান ভুল হয়ে থাকে বা ভ্রমণ স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে অথবা আপনার কোন ভ্রমণ গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করতে চান তাহলে Comments করে জানান অথবা আমাদের কে ''আপনার মতামত'' পেজ থেকে মেইল করুন।