আমুলিয়া মডেল টাউন, কাশফুলের রাজ্য | ভ্রমণকাল

আমুলিয়া মডেল টাউন, কাশফুলের রাজ্য

আমাদের মধ্যে বেশীরভাগ মানুষেরই কাশফুল অনেক প্রিয়। যান্ত্রিক শহরের ইট পাথরের দেয়ালে কাশফুলের দেখা মেলা ভার। কিছুক্ষণের জন্য কাশফুলের রাজ্যে হারিয়ে যেতে মন চাইলে চলে আসতে পারেন আমুলিয়া মডেল টাউনে। ঢাকার মধ্যে ডেমরাতেই অবস্থিত আমুলিয়া মডেল টাউন

আমুলিয়া মডেল টাউন ডুকতেই আপনার চোখে পরবে মডেল টাউন এরিয়ার বিশাল গেইট, আর প্রসস্থ রাস্তা। রাস্তা দিয়ে হাটলে দেখবেন ভূমিরূপ সতেজ আর চিরসবুজ প্রকৃতি। প্রকৃতি এক মায়ার জালে আবদ্ধ এখানে। রাস্তা দিয়ে হাটলে সেখানের বিশুদ্ধ বাতাস জুড়িয়ে দেবে আপনার শরীর ও মন। আপনাকে করে তুলবে প্রফুল্ল ও প্রানবন্ত। আমুলিয়াতে যাওয়ার সঠিক সময় হচ্ছে শীতকালে। কেননা শীতের সময় এই কাশবন এ ফুলগুলো শুভ্রতার চাদরে ঢাকা পড়ে যায়।

চারিদিকে কাশফুলের মেলা দেখে ভাবনায় আসতেই পারে এখানেই থেকে যাই ! এ যেন এক সাদার রাজ্য! বুক ভরে খোলা আকাশের নিচে নিশ্বাস আর হাতে কাশফুল নিয়ে ছায়াঘেরা গাছের নিচ দিয়ে হেঁটে চলা। মনে হবে সময়টা যেন এখানেই থেমে যাক। আসলেই প্রকৃতি বরাবরই এক গুচ্ছ ভালোবাসা নিয়ে প্রস্তুত থাকে।

দূর থেকে দেখলেই মনে হবে শুভ্র কাশফুল হাতছানি দিয়ে এই বুঝি ডাকলো! আমুলিয়া মডেল টাউন এমন একটি জায়গা যেখানে প্রান ভরে ফুসফুসে অক্সিজেন নেওয়া যায়। সারা বছরই আমুলিয়া তার নিজ রূপে সজ্জিত হতে থাকে। কিন্তু শরতে বেশি। শরতে সবুজ প্রকৃতি যেন চাদর গায়ে দিয়ে এক নতুন রূপ নেয়। আর বর্ষার সময় তো আরও রোমাঞ্চকর!

আমুলিয়া মডেল টাউন কিভাবে যাবেন

অতি সহজ উপায় আপনি আসতে পারবেন আমুলিয়া মডেল টাউন। গুলিস্তানের সার্জান আহাদ পুলিশ বক্স এর সামনে থেকে ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার আসার বাস পাবেন। সেখান থেকে উঠে সরাসরি ডেমরা চলে আসতে পারবেন। ভাড়া ৩০টাকা (ডিজেল চালিত বাস)। সেখান থেকে নেমে রামপুরাগামি রিক্সাতে করে আমুলিয়া মডেল টাউন আসতে পারেন। ভাড়া ৩০ টাকা নিবে। আর নয়তো বাসে করে ও যেতে পারেন। ভাড়া মাত্র ১০ টাকা নিবে। এ রোডে চলাচল বাসগুলো হলো- অছিম, রাজধানী, স্বাধীন, আসমানী পরিবাহন।

অথবা
এয়ারপোট অথবা রামপুরা থেকে অছিম, রাজধানী, স্বাধীন অথবা আসমানী পরিবহনে করে ও আসতে পারবেন আমুলিয়া মডেল টাউনে।

কোথায় খাবেন

আমুলিয়া মডেল টাউনে ডুকার সময় গেটের সামনে কয়েকটি অস্থায়ী দোকান পাবেন, সেখানে খেতে পারেন অথবা, স্টাফকোয়টার যেতে হবে সেখানে কিছু ভালো মানের হোটেল ও রেস্টুরেন্ট রয়েছে, বিখ্যাত একটা হোটেল হলো কালামের হোটেল, এই হোটেলের চা সবার কাছেই পছন্দনীয়। এ ছাড়াও আরো কিছু খাবারের মেনু পেয়ে যাবেন সেখান থেকে খেতে পারেন। হাজী হোসেন প্লাজা মার্কেটেও আরো দুটি হোটেল রয়েছে।

ভ্রমণকালে পরামর্শ

▢ শীতকালে গেলে কাশফুলের রাজ্য দেখতে পাবেন।
▢ এই আমুলিয়া মডেল টাউনে বছরের কোরবানী ঈদের সময় হাট বসে। কোরবানী ঈদের আগে না যাওয়াই ভালো। তবে গরু কােরবানীর কিনতে যেতে পারেন।
▢ আমুলিয়া মডেল টাউন নতুন আবাসিক এরিয়া এখানে সন্ধ্যার পর তেমন লোকের সমাগম হয় না, সন্ধ্যার আগেই মডেল টাউন থেকে বের হয়ে আসুন।
▢ আমুলিয়া মডেল টাউন যেহেতু খোলা জায়গা তাই এখানে কোন টিকেট কাটতে হয় না।
▢ সকালে ফজর নামাজের পর এখানে অনেক লোক আসে শারীরিক ব্যায়াম করতে।
▢ প্রতিদিনই সাইকেল ও মটোর সাইকেল নিয়ে এখানে অনেক লোক জন আসে।

আরো দেখুন

ধার্মিক পাড়া (মিনি কক্সবাজার)
মুড়াপাড়া জমিদার বাড়ি
বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা
দৃষ্টি আকর্ষণ: আমাদের পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের পরিচয় বহন করে এবং এইসব পর্যটন স্পট গুলো আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন। আর ভ্রমনে গেলে কোথাও ময়লা ফেলবেন না। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।